আমতলীতে অনিয়মের নিউজ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে ফাঁসালেন শিক্ষক তীব্র নিন্দা জানালেন সাংবাদিক সমাজ 

আমতলীতে অনিয়মের নিউজ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে ফাঁসালেন শিক্ষক তীব্র নিন্দা জানালেন সাংবাদিক সমাজ 
আমতলীতে অনিয়মের নিউজ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে ফাঁসালেন শিক্ষক তীব্র নিন্দা জানালেন সাংবাদিক সমাজ 

স্টাফ রিপোর্টারঃ বরগুনার আমতলীতে সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অনিয়ম ও দূ্র্নীতীর নিউজ প্রকাশ করার কারনে পুলিশ ও সহকারী শিক্ষক মাসুদ মোল্লার সহায়তায় চাঁদাবাজ সাজিয়ে আটক করে হয়েছে সাংবাদিক নজরুল ইসলামকে । ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার বিকেলে আমতলী উপজেলার আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়

জানাগেছে, সরকারী নির্দেশ মোতাবেক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বাড়ী বাড়ী গিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট পরীক্ষা গত মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়। উপজেলার দক্ষিণ সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ওই পরীক্ষার প্রশ্নপত্র গত বৃহস্পতিবার বিতরন করেন। প্রশ্নপত্র বিতরনে অনিয়মের অভিযোগে দৈনিক শিক্ষা তথ্য অনলাইন পোর্টালে সাংবাদিক মোঃ নজরুল ইসলাম স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোসাঃ শিউলি আক্তারের অনিয়ম তুলে ধরেন। এরপরে প্রধান শিক্ষক পশ্চিম সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাসুদ মোল্লার মাধ্যমে সাংবাদিক নজরুল ইসলামকে দক্ষিণ সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে ডেকে নিয়ে যায়। এরপরে নগদ ১০ হাজার টাকা জোরকরে সাংবাদিকের পকেটে ঢুকিয়ে দেয় ৫ সেকেন্ডের মধ্যে এসআই আব্দুল হাই একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে সাংবাদিক নজরুল ইসলাম কে আটক করে। এ ঘটনায় সাংবাদিক মোঃ নজরুল ইসলাম মোল্লার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা করেছে ঐ শিক্ষক ।এ ঘটনায় সাংবাদিক মহলে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।   

এ বিষয় ঐ বিদ্যালয়রে প্রধান শিক্ষক মোসাঃ শিউলী আক্তার বলেন, অ্যাসেইনমেন্ট পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিতরনের অনিয়মের অভিযোগ তুলে কথিত সাংবাদিক মোঃ নজরুল ইসলাম আমার কাছে ৪০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করেন। তার দাবীকৃত টাকা আমি দিতে অস্বীকার করলে আমাকে চাকুরীচ্যুত করাসহ বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখায়। নিরুপায় হয়ে তার দাবীকৃত চাঁদার টাকা আমি নজরুলকে দিয়েছি। 

সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বলেন, নিউজ প্রকাশের কারনে আমাকে ডেকে নিয়ে পকেটে টাকা ভরে দিয়ে ফাঁসিয়ে দিয়েছেন। দক্ষিণ সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রশ্নপত্র বিতরনে অনিয়মের অভিযোগে দৈনিক শিক্ষা তথ্য  পোর্টালে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোসাঃ শিউলি আক্তারের অনিয়ম তুলে ধরি। এরপরে প্রধান শিক্ষক পশ্চিম সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাসুদ মোল্লার মাধ্যমে আমাকে দক্ষিণ সোনাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে ডেকে নিয়ে যায়। এরপরে নগদ ১০ হাজার টাকা জোরকরে পকেটে ঢুকিয়ে দেয় ৫ সেকেন্ডের মধ্যে এসআই আব্দুল হাইর নেতৃত্ব একদল পুলিশ  ঘটনাস্থল থেকে আমাকে আটক করে।

আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, টাকাসহ নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনার মামলা হয়েছে ।