শিক্ষা তথ্য

কুয়েতে সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় সংসদ সদস্য থাকার যােগ্যতা হারিয়েছেন পাপুল 

ইমরান হোসাইন, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ মানব ও মুদ্রা পাচারের মামলায় কুয়েতে সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় শেষ পর্যন্ত এমপি পদ হারালেন আলােচিত সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। তিনি লক্ষ্মীপুর-২ আসন থেকে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচিত ছিলেন।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ সচিবালয় থেকে এ সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ করেছে । এতে বলা হয়েছে , নৈতিক স্খলনজনিত ফৌজদারী অপরাধে কুয়েতে ৪ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় সংবিধানের ৬৬ অনুচ্ছেদের বিধান অনুযায়ী পাপুল সংসদ সদস্য থাকার যােগ্যতা হারিয়েছেন । সে কারণে সংবিধানের ৬৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রায় ঘােষণার তারিখ গত ২৮ জানুয়ারি থেকেই তার আসন শূন্য হয়েছে ।

বাংলাদেশের ইতিহাসে কোনো সংসদ সদস্য বিদেশের মাটিতে ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম।

ওই অনুচ্ছেদে আরও বলা আছে, কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব নিলে কিংবা কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের প্রতি আনুগত্য ঘোষণা বা স্বীকার করলে আর সংসদ সদস্য হিসেবে থাকতে পারবে না।

নির্বাচন কমিশন সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, “আসন শূন্য ঘোষণা সংক্রান্ত গেজেটর কপি আমরা হাতে পেয়েছি। পরবর্তী করনীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে তা কমিশনের কাছে উপস্থাপন করা হবে।”

সাংবিধানিকভাবে পাপুলের আসন শূন্য ঘোষণার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে সেখানে নির্বাচনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম জানান।

কুয়েতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর দেশেও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের পৃথক দুই মামলায় সাংসদ শহিদসহ ছয়জনের ৬৭০টি ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার আদালত। মানবপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগে কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে গত বছরের ২২ ডিসেম্বর মামলা করে সিআইডি। আসামিদের মধ্যে তার মেয়ে, ভাই ও শ্যালিকাও রয়েছেন। এর আগে ১১ নভেম্বর মানবপাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে পাপুল ও তাঁর স্ত্রী সেলিনার বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

শেয়ার করুন