শুক্রবার , মে ২৯ ২০২০
সংবাদ শিরোনাম
Home » সারাদেশ » রাজশাহী » রাজশাহী » নওগাঁয় পুলিশ কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্যকর্মী সহ ৭০ জন করোনা আক্রান্ত, মার্কেট গুলোতে মানা হচ্ছেনা সরকারী নির্দেশনা

নওগাঁয় পুলিশ কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্যকর্মী সহ ৭০ জন করোনা আক্রান্ত, মার্কেট গুলোতে মানা হচ্ছেনা সরকারী নির্দেশনা

এম,এ রাজ্জাক, রাজশাহী ব্যুরো চীফ প্রধানঃ

আজ ১৩ মে বুধবার পর্যন্ত নওগাঁয় পুলিশ কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্যকর্মী সহ মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৭০ জন। ইতি মধ্যেই ১০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। অপরদিকে গত ১০ মে থেকেই নওগাঁ জেলা সদর সহ উপজেলা পর্যায়ে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা হয়েছে। ফুটপাতের দোকান থেকে শুরু করে শপিংমল সহ বড় বড় বিপনী বিতান গুলোও খোলা হয়েছে। ফলে জেলা শহর সহ জেলার মোট ১১ টি উপজেলা শহর ও হাট-বাজার গুলোতে হঠাৎ করেই যেন ধুম পড়েছে কেনা-বেচার। সরকারী বা প্রশাসনের নিয়ম নিতির তোয়াক্কা না করেই ব্যাপক জনসমাগম এর সাথেই চলছে কেনাবেচা। কেউ মানছেনা সামাজিক দূরুত্ব, এমনকি শহরের বিপনীগুলোতে নজরে পড়েনি সানেটাইজেশন বা হাত ধৌত করার ব্যবস্থ্যার উদ্যোগও। যদিও বা শহর ঘুড়ে দুটি মার্কেটে হাত ধৌত করার পানির ড্রাম দেখা গেলেও সেখানে গিয়ে সাবান দেখতে পাওয়া যায়নি। আর সবচেয়ে বিপদ জনক হচ্ছে ক্রেতা বা বিক্রেতা কেউ মানছে না সরকারী নিয়ম নিতি। আর সব খানেই উপছে পড়া ভীড় লক্ষনীয়। সড়কে চলছে সিএনজি, ইজিবাইক, চার্জার রিক্সা ও ভ্যান, মোটর সাইকেল ও প্রাইভেট কার সহ নানান যানবাহন। এমনকি খোলা হয়েছে ছোট চায়ের দোকান বা চা ষ্টল সহ কিছু হোটেলেও চলছে জমজমাট ব্যবস্যা।

এক কথায় স্বাভাবিক বছরগুলোর ঈদ মার্কেটের ন্যায়ই হঠাৎ করেই জমে উঠেছে মার্কেট গুলোতে কেনাবেচা, ফলে একই সাথেই ব্যাপক জনসমাগম বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে ফুটে উঠেছে স্বাভাবিক সময়ের ঈদের কেনাবেচার বা জনসমাগমের চিত্র-ই। যা দেখে মনে হবে যেন, নওগাঁ জেলা করোনা ভাইরাস মুক্ত জেলা। যদিও বা নওগাঁ জেলাতে করোনা ভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বা নমুনা পরিক্ষা ব্যবস্থা সেই শুরু থেকেই অনেকটা ধীর গতীতে চলছে বল্লে ভুল বলা হবে না। তারপর ইতি মধ্যেই নওগাঁ জেলাতেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্তর সংখ্যা সর্বমোট ৭০ জন। যদিও বা ইতি মধ্যেই ১০ জন সুস্থ্যতা লাভ করেছেন এবং সুস্থ্যরা নিজ নিজ বাড়িতে ও ফিরেছেন বলেই জেলা প্রশাসক অফিস প্রেস রিলিজে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দৈনিক-জাগো জনতাকে।
তবে, ১০ মে থেকে নওগাঁতে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্টান খোলার পরই জেলা শহর সহ জেলার উপজেলা শহর ও বিভিন্ন হাট-বাজার গুলোতে যেহারে জনসমাগম বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সরকারী বা প্রশাসনের নির্দেশনা না মেনে বা দূরুত্ব বজায় না রেখেই বিশেষ করে শহরের বিপনী গুলোতে লোক সমাগম বা ভীড় করে কেনাবেচার ধুম পড়েছে, এতে করে করোনা ভাইরাস আক্রান্তর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এমনটাই দাবি করে সচেতন মহল বলছেন, যে কোন উপায়ে হলেও সরকারী বা জেলা প্রশাসনের নির্দেশনার বাস্তবায়ন করার মাধ্যমে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বিপনী গুলোতে সামাজিক দূরুত্ব বজায় রেখেই যেন কেনা বেচা চলে সে ব্যাপারে প্রশাসনকে প্রয়োজনে কঠোর থেকে কঠোরতম ভূমিকা নিয়ে হলেও কন্টোল করতে হবে সেই শুরু দিক প্রশাসন যেভাবে মাঠে নেমেছিলো একইভাবে বলেও মন্তব্য প্রকাশ করেছেন সচেতন মহল।
একই সাথে, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কেনাকাটা করতে বাসা থেকে বের না হওয়া সহ, জরুরী কেনাবেচার কাজে শহর বা বাজারে গেলেও সবাইকে প্রশাসনের নির্দেশনা মেনে বা সামাজিক দূরুত্ব বজায় রেখে চলাচল বা কেনা বেচারও পরামর্শ দেন সচেতন মহল।

আরও সংবাদ

প্রাণের সংগঠন বিএমএসএফ – শারমিন সুলতানা মিতু

স্টাফ রিপোর্টারঃ বিএমএসএফ সৈনিকরা সদাপ্রস্তুত দেশের সেবায় নিয়োজিত সত্যের দূত। দেশ ও জাতির স্বার্থে তথ্য …