1. [email protected] : Gk Russel : Gk Russel
  2. [email protected] : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  3. [email protected] : pbangladesh :
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৫২ অপরাহ্ন

বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও জামায়াতের ঐক্য

সংবাদদাতা :
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২২ মার্চ, ২০২৪
  • ৩৪ বার দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটি নতুন নীরব মেরুকরণ চলছে বলে একাধিক সূত্র আভাস দিয়েছে। আর এই নতুন মেরুকরণে তিনটি প্রধান রাজনৈতিক দলের মধ্যে একটি ঐক্যের সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। তিনটি রাজনৈতিক দলই অত্যন্ত গোপনে একজনের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করছেন এবং তাদের ঐক্যের জায়গাগুলোকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে একটি বৃহত্তর রাজনৈতিক মঞ্চ করার জন্য চমক হিসেবে এই ঐক্য হবার একটি ক্ষীণ সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে বলে একাধিক রাজনৈতিক সূত্র দাবি করেছে।

এই তিনটি রাজনৈতিক দলের কতগুলো আদর্শিক ঐক্যের জায়গায় রয়েছে। এ কারণে তাদের মধ্যে ঐক্য হওয়াটা বিচিত্র না। তারা সকলেই পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের বেনিফিশিয়ারি।

বিভিন্ন সূত্রগুলো বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে বিএনপি ছোট ছোট খুচরা খুচরা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলাপ আলোচনার চেয়ে একটি বৃহত্তর পরিষদে জনপ্রিয়তা রয়েছে এমন রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে ঐক্যের পরিকল্পনা করছে। এই ঐক্যের ভাবনা থেকেই তারা নাগরিক ঐক্য, গণঅধিকার পরিষদ বা জেএসডির মতো রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ জোট বা মোর্চা করেনি।’ নির্বাচনের পর এখন বিএনপি চাইছে যে, রাজনীতিতে শক্তি আছে, মাঠে জনপ্রিয়তা আছে এমন রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে একটি ঐক্যবদ্ধ মোর্চা করতে। সেই লক্ষ্যে বিএনপির এখন প্রধান টার্গেট জাতীয় পার্টি। জাতীয় পার্টিও এখন কোণঠাসা অবস্থায় রয়েছে। জাতীয় পার্টির জিএম কাদের অংশ মনে করে যে সরকার তাদেরকে নিয়ে খেলছে। সরকারের কারণেই জাতীয় পার্টি ভেঙেছে। রওশন এরশাদপন্থীদের প্রতি আওয়ামী লীগের সমর্থন আছে এমন বক্তব্য জাতীয় পার্টির নেতারা প্রকাশ্যেই বলছে।

রওশন এরশাদের পৃথক জাতীয় পার্টি গঠন, জাতীয় পার্টিকে ক্ষতিগ্রস্ত করেনি এমন বক্তব্য প্রকাশ্যে দিলেও জাতীয় পার্টির নেতারা ভাল করেই জানেন যে, তারা ভালমতোই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এই কারণে অস্তিত্বের প্রয়োজনে জাতীয় পার্টিকে এখন সরকার বিরোধী অবস্থান রাখতে হবে এবং সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে।

জাতীয় পার্টির একাধিক নেতারা মনে করছেন, সংগঠনকে শক্তিশালী করতে গেলে এবং সরকার বিরোধী অবস্থান গ্রহণ করতে গেলে বিএনপির সঙ্গে ঐক্য করার কোনো বিকল্প নেই।’

বিএনপির সঙ্গে জিএম কাদেরের এমনিতেই সুসম্পর্ক ছিল। জিএম কাদের যে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেছিলেন নির্বাচনের আগে এমন কথাও বাজারে চাউর হয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে এবং বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় সংসদে জায়গা করে নিয়েছে। তবে জাতীয় পার্টির ব্যাপারে বিএনপির আগ্রহ নষ্ট হয়ে যায়নি। জাতীয় পার্টি এখন বিএনপির ব্যাপারে আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি আগ্রহী হয়েছে। সরকারের বিরুদ্ধে সামনের দিনগুলোতে বিএনপি এবং জাতীয় পার্টি যদি প্রকাশ্য ঐক্য হয় তাহলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।’

অন্যদিকে বিএনপির বিশ্বস্ত এবং সারাজীবনের মিত্র জামায়াত। কৌশলগত কারণে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপি এখন প্রকাশ্য ঐক্য করতে পারছে না। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ভারত বিরোধিতা এবং ভারত বিরোধী অবস্থানের কারণে বিএনপি এখন আবার জামায়াতের সাথে প্রকাশ্য ঐক্য করতে আগ্রহী। বিএনপির কোন কোন নেতারা মনে করছেন, বিএনপি, জাতীয় পার্টি এবং জামায়াতের ঐক্য যদি হয় তাহলে বাংলাদেশের রাজনীতির হিসাব অন্যরকম হয়ে যাবে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বাংলাদেশের রাজনীতি আসলে এই দুটি ধারায় বিভক্ত। আওয়ামী লীগ হলো মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের শক্তি রাজনৈতিক দল। অন্যদিকে বিএনপি, জাতীয় পার্টি এবং জামায়াত হলো মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী রাজনৈতিক শক্তির কেন্দ্র। যে রাজনৈতিক শক্তির উত্থান ঘটেছিল পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের শোকাবহ ঘটনার পর। আর এ কারণেই বাংলাদেশের রাজনীতিতে অদূর ভবিষ্যতে যদি বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জামায়াতের ঐক্য হয় তাহলে অবাক হবার কিছু থাকবে না।’

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:২২
  • ১২:০২
  • ৪:৩০
  • ৬:২৪
  • ৭:৪০
  • ৫:৩৭
শিক্ষা তথ্য পত্রিকার কোন লেখা, ছবি বা ভিডিও কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: সাইবার প্লানেট বিডি