1. [email protected] : Gk Russel : Gk Russel
  2. [email protected] : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  3. [email protected] : pbangladesh :
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:১৫ অপরাহ্ন

ভুতের বাড়ির কাহিনী। চার মাসের ব্যবধানে একই বাড়িতে তিনটি আত্মহত্যা। তিনটি জীবনের সমাপ্তি

সংবাদদাতা :
  • আপডেটের সময় : সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৭৯ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার: ১১ই ফেব্রুয়ারী রোজ রবিবার বিকাল ৪ টার দিকে এক যুবকের আত্মহত্যার সংবাদ আসে। সংবাদ সংগ্রহ করেন দৈনিক আজকের বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক জি.কে.রাসেল সাহেব। তিনি তাৎক্ষণিক অফিসে অবস্থানরত সাংবাদিককে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের নির্দেশ দেন। ঘটনাস্থল বন্দর র‍্যালি মসজিদ গলি আবাসিক এরিয়া জনাব হুমায়ুন আজাদ সাহেবের বাড়ি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন কালে জানতে পারা যায়, রফিকুল ইসলাম (২৭) নামের এক যুবক আজ বিকেল আনুমানিক ৪ঃ০০ টার দিকে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। বাড়ির পাশের এক প্রতিবেশীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, গত পাঁচ মিনিট আগে রফিকুল ইসলাম নামের যুবকের লাশ নিয়ে, তার পরিবার হসপিটালে গিয়েছে। দৈনিক আজকের বাংলাদেশ পত্রিকা এ বিষয়ের কোন যুক্তি খুঁজে পায় না। কেউ যদি মারা যায় তাকে হসপিটালে নিয়ে যাওয়ার কি কোন যুক্তি আছে। রহস্য জনক মৃত্যুর ক্ষেত্রে তদন্তের গুরুত্ব অনেক। পুলিশের তদন্ত ছাড়া কোন বাড়ি থেকে একটি লাশ বের করে দেওয়া সামাজিক অপরাধের শামিল। সমাজ কি এর জন্য দায়বদ্ধ না? এই ক্ষেত্রে প্রশ্ন আসে পুলিশ কি তার কাজ পরিপূর্ণভাবে করতেছে? না হলে কিভাবে এমনটা সম্ভব হয়? ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে জানা যায়, রফিকুল ইসলাম একজন মাদক সেবী ছিলেন। তিনি প্রতিনিয়ত মাদক সেবন করতেন। এবং মাদক সেবন করে তার স্ত্রীকে মারধর করতেন। মৃত্যুর দুই দিন আগে তিনি প্রচুর পরিমাণ ঘুমের ওষুধ সেবন করেন যার দরুন তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এবং আজ বিকেল আনুমানিক চারটার দিকে রহস্য জনক ভাবে তিনি আত্মহত্যা করে। এ বিষয়ে প্রতিবেশীদের জিজ্ঞেস করলে তারা আরো জানান আনুমানিক তিন থেকে চার মাস আগে একই বাড়িতে রহস্য জনক ভাবে আরো দুইজন আত্মহত্যা করেন। এই বাড়ির এক রুমের মধ্যে স্বামী স্ত্রী দুইজন গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এই বিষয়ে বাড়িওয়ালার হুমায়ুন আজাদ সাহেবের সাথে কথা বললে তিনি জানান, তিনি কিছুই জানেন না। মৃত ব্যক্তির নাম জিজ্ঞেস করলে তিনি বলতে পারেন না। মৃত ব্যক্তির পরিবারের কারো নাম্বার চাইলে তিনি তাও দিতে সক্ষম হন না।কোন হসপিটালে তারা গিয়েছে তা জানতে চাইলে তিনি সেটাও জানাতে পারেন না। তার কথায় আমরা কিছু বুঝতে পারছিলাম না। তিনি কি আসলেই জানেন না, নাকি কিছু লুকাতে চাইছেন। দৈনিক আজকের বাংলাদেশ পত্রিকার জিজ্ঞাসাবাদ যখন শেষের দিকে তখন এস আই আরিফ পাঠান এবং সাথে আরো দুইজন পুলিশ সদস্য তদন্তের উদ্দেশ্যে বাড়িওয়ালা হুমায়ুন আজাদের সাথে দেখা করেন। এস আই আরিফ পাঠান বাড়িওয়ালাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন কিন্তু বাড়িওয়ালা তাকে কিছুই জানাতে পারেন নি। পরিশেষে একটি এনআইডি পরিচয় পত্র তুলে দেওয়া হল এস আই আরিফ পাঠানের হাতে। জিজ্ঞেস করলে বাড়িওয়ালা জানান, মৃত ব্যক্তির পরিবারের কোন এক ব্যক্তির এনআইডি কার্ড কিন্তু তিনি এই বিষয়ে নিশ্চয়তা দিয়ে কিছু বলতে পারবেন না। এস আই আরিফ পাঠান অনেক তদন্তের পরে জানতে পারেন মৃত ব্যক্তির নাম রফিকুল ইসলাম। বাড়িওয়ালাকে থানায় গিয়ে দেখা করার কথা বলে, এস আই আরিফ পাঠান তার সঙ্গীদের নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। দৈনিক আজকের বাংলাদেশ পত্রিকা এই আত্মহত্যার রহস্য উন্মোচন করতে গিয়ে নিজেরাই রহস্যের বেড়াজালে আটকে গেছে। বাড়িওয়ালা কিছু জানেন না। প্রতিবেশীরা নিশ্চিত হয়ে কিছু বলতে পারছেন না। তাহলে কি জানা হবে না কেন আত্মহত্যা করেছেন রফিকুল ইসলাম।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:১২
  • ১২:১৫
  • ৪:২১
  • ৬:০৩
  • ৭:১৭
  • ৬:২৪
শিক্ষা তথ্য পত্রিকার কোন লেখা, ছবি বা ভিডিও কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: সাইবার প্লানেট বিডি