মঙ্গলবার , মে ২৬ ২০২০
সংবাদ শিরোনাম
Home » অনিয়ম » মির্জাগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিকে MHV নিয়োগে পুকুর চুরির অভিযোগ

মির্জাগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিকে MHV নিয়োগে পুকুর চুরির অভিযোগ

মোঃ রিয়াজ হোসাইন মির্জাগঞ্জ সংবাদদাতাঃ

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিকে MHV (কমিউনিটি মাল্টিপারপাস হেল্থ ভলেন্টিয়ার) নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম, দূর্নীতি, পুকুর চুরির মত অবৈধ আর্থিক লেনদেন সহ সংশ্লিষ্ট্য ক্লিনিকের ব্লক থেকে প্রার্থী বাছাই না করে অন্য ইউনিয়ন থেকে প্রার্থী নিয়োগের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ০৪/০৩/২০২০ ইং তারিখে উপজেলার কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রধানরা ( CHCP) উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক ( ইনচার্জ)  গাজী আসাদুল হকের বিরুদ্ধে  সিভিল সার্জন, পটুয়াখালী সহ সংশ্লিষ্ট্য লাইন ডাইরেক্টর সিবিএইচসি বরাবরে লিখিত আকারে এ সংক্রান্ত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১৮/১২/২০১৯ ইং তারিখে সিবিএইচসি এমএইচভি – ৩৪/২০১৭/৩৯৮২ স্মারকের  আলোকে  প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিকে CBHC( কমিউনিটি বেইসড হেল্থ কেয়ার) অপারেশন প্লানের আওতায় কমিউনিটি ক্লিনিক সংশ্লিষ্ট্য  ব্লক থেকে  ৫/৭ জন করে MHV নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় এবং  MHV বাছাই কমিটির নির্দেশনায়  অন্যান্যের মধ্যে প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিকের CHCP দেরকে সদস্য সচিব, সংশ্লিষ্ট সিসি’র সভাপতি, জমিদাতা, ইউপি চেয়ারম্যানকে  সদস্য করা হয়। বাছাই কমিটিতে উল্লেখিত ব্যক্তিবর্গের মতামত কে প্রাধান্য দিয়ে MHV পদে CG ও CSG তে কর্মরত স্বেচ্ছাসেবক দেরকে অগ্ৰাধিকার দেয়ার নির্দেশনা জারি হয়। কিন্তু  উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক গাজী আসাদুল হক  MHV বাছাই বোর্ড কমিটির সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যর মতামত উপেক্ষা করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কিছু কর্মকর্তার যোগসাজসে স্বজনপ্রীতি, দূর্নীতি ও অবৈধ আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে প্রভাব খাটিয়ে সম্পূর্ণ মনগড়া ভাবে অযোগ্য প্রার্থীকে নিয়োগ দিয়ে চূড়ান্ত বাছাই তালিকা প্রকাশ করেন এবং  তড়িঘড়ি করে COVID-19 সংক্রান্ত সরকারি ছুটির মধ্যেও চূড়ান্ত প্রার্থীদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে লোক পাঠিয়ে কমিউনিটি ক্লিনিকে যোগদান করানোর পাঁয়তারা করছেন।

এমনকি সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে উপজেলার ৫ং ইউনিয়নের ০৪ জন প্রার্থীকে অবৈধ ভাবে ০৬ নং ইউনিয়নের তারাবুনিয়া কমিউনিটি ক্লিনিকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে,  যা সম্পূর্ণ বেআইনি ও সরকারি বিধি পরিপন্থী।

এ ব্যাপারে ৬নং মজিদ বাড়িয়া ইউনিয়নের সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক মোঃ ছিদ্দিকুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এটা সম্পূর্ণ অন্যায় ও  ভুল হয়েছে । এ নিয়োগ বাতিল করবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি প্রতিবেদক কে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা (পঃ পঃ) কর্মকর্তার সাথে কথা বলতে বলেন।

এ ছাড়াও গোলখালী সিসি’র সভাপতি মোঃ বাদশাহ মেম্বারের মেয়ে সহ একই বাড়িতে আরো ২ জনকে অবৈধ আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগ দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। এতে কর্মরত সিসি’র CHCP এবং নিয়োগ বঞ্চিত প্রার্থীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা অবিলম্বে এ স্বেচ্ছাচারী অবৈধ নিয়োগ ‌বাতিল করে বিধি মোতাবেক যোগ্য প্রার্থীর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করার অনুরোধ জানান ।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য পরিদর্শক গাজী আসাদুল হক সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী একটা মহল আমাকে নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা (পঃপঃ) কর্মকর্তা মোসাঃ দিলরুবা ইয়াসমিন লিজা’র সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে অনলাইনে আবেদনের অজুহাতে এরিয়ে যেতে চাইলে প্রতিবেদকের পাল্টা প্রশ্নে তিনি ফোনে কোন বক্তব্য না দিয়ে সরাসরি হাসপাতালে  তার সাথে সাক্ষাত করতে বলেন।

আরও সংবাদ

পটুয়াখালীর ৫৬৫৬টি মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান প্রদান 

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি, চলমান করোনা পরিস্থিতিতে মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণকে সহায়তার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী …