শিক্ষা তথ্য

মির্জাগঞ্জে খাল খননে নানা অনিয়মে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী 

মোঃ রিয়াজ হোসাইন বরিশালঃ পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে গোলখালীর,বেগমপুর ও চত্রা বকশী খাল খননে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ২৯ লাখ টাকা ব্যায়ে সুবিদখালী-চত্রা পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি তদারকির মাধ্যমে ৫কি.মি এ পুনঃখনন করাচ্ছে উপজেলা প্রকৌশলী অফিস।
পশ্চিম-সুবিদখালী গ্রামের বেল্লাল হাং ও কুদ্দুস মল্লিকসহ অনেকেরই অভিযোগ, শুরু থেকেই খননকাজে অনিয়ম হচ্ছে। যারা কাজ করছে তারা বলেছিল পাড়ের মাটি দুরে সরিয়ে আরো গভীর করা হবে। কোন রকম খনন কাজ করেনি শুধু দু’পাড়ে সামান্য মাটি দিয়ে পাড় কেটে খালের ভিতরে পানি ছেড়ে দিয়েছে । যেভাবে খনন কাজ করছে তাতে আমাদের উপকারের চেয়ে ক্ষতিই হয়েছে বেশি। নিয়ম অনুযায়ী খাল খনন কাজ করছে না সংশ্লিষ্টরা। উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) অফিসের লোকজন খনন কাজ সঠিকভাবে না করায় খননের মাটি উত্তোলন করে দুরে না সরিয়ে পাড়েই রেখে দিচ্ছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই মাটি ধসে খাল পুনরায় ভরে যাবে। পানি সেচ না দিয়েই চালাচ্ছে খাল খননের কাজ। এছাড়াও খনন কাজ শেষ না হতেই পাড়ের মাঠি ধসে পড়ছে।
সুবিদখালী-চত্রা পানি ব্যাবস্থাপনা সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইউসুফ কাজী বলেন, সমিতির লোকজন দেখাশুনার দ্বায়িত্ব পালন করেন তবে কাজ করানোর দায়িত্ব উপজেলা প্রকৌশলী বিভাগের।
উপজেলা প্রকৌশলী (দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত ) মোঃ আজিজুর রহমান বলেন, নিয়ম অনুযায়ী কাজ না হলে নতুন করে পানি সেচ করে খনন করতে হবে।
শেয়ার করুন