সোমবার , মে ২৫ ২০২০
সংবাদ শিরোনাম
Home » অনিয়ম » সহস্রাধিক ভুতরে শিক্ষার্থী দশমিনায় ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে

সহস্রাধিক ভুতরে শিক্ষার্থী দশমিনায় ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে

সঞ্জয় ব্যানার্জী, দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় এ বার প্রাথমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ন শিক্ষার্থীও অধিক ৯শ’ ৮৫জন শিক্ষার্থী ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে ভর্তি হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় এ উপজেলার ১৪৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ডি আর ভুক্ত ২হাজার ৯শ’৬০জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২হাজার ৮শ’৬৩জন ও ৪৫টি ইবতেদায়ীর ডি আর ভুক্ত ৩শ” ২৭জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২শ” ৫৫জন  শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহন ও উত্তীর্ণ হয়। মোট উত্তীর্ন শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ হাজার ১শ”১৮জন। প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী মিলে পরীক্ষায়  অংশ গ্রহন করেনি ১শ”৬৯জন শিক্ষার্থী। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সুত্রে জানা যায়, ১৮টি মাধ্যমিক ও ৭টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবার ২হাজার ৯শ” ৩জন  এবং মাদ্রাসায় ১হাজার ২শ” শিক্ষার্থী ৬ষ্ঠ শেনিতে ভর্তি হয়েছে। মাধ্যমিক ও মাদ্রাসায় মোট শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে ৪হাজার ১শ” ৩জন। ভুতরে বা অতিরুক্ত ভর্তি দেখানো হয়েছে ৯শ” ৮৫জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪০শিক্ষার্থী ও মাদ্রাসায় ৯শ”৪৫জন শিক্ষার্থী। উপজেলা আদালতের পূর্ব পাশের মাঠে একদল শিশু ক্রিকেট খেলা অবস্তায় কথা হয় তাদের সাথে। তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয় ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে ভর্তি হয়েছো কি না? তাদের মধ্যে থেকে মোঃ জিহাদ হোসেন ও মোঃ শাকিল হোসেন বলে আমরা ভর্তি হতে পারি নাই। মোঃ জিহাদ হোসেন পিএসসিতে জিপিএ ২.৮৩ ও মোঃ শাকিল হোসেন জিপিএ ১.৫৭ পেয়ে উক্তির্ন হয়েছে। দশমিনা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেনির ভর্তি পরীক্ষায় উত্তর্নী না হওয়া ও পাশাপাশি কোন মাধ্যমিক বিদ্যালয় না থাকায় এ হত-দরিদ্র পরিবারের দু’শিশু  ভর্তি হতে পারেনি।উপজেলার যোগাযোগ বিছিন্ন চর-হাদীতে দুটি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। ওই দু’ বিদ্যালয়ে মোট ১৩ জন শিক্ষার্থী এবার পিএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে উত্তর্নী হয়। ওই চরের কোন নিম্ন-মাধ্যমিক বা মাধ্যমিক বিদ্যালয় নেই। খোজ নিয়ে জানা যায়, এবার পিএসসি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে মোসাঃ সুখি আক্তারসহ ৬শিক্ষার্থীনী বিয়ে হয়ে গেছে বলে ওই চরের এক শিক্ষক জানিয়েছেন। মোহাম্মাদ আলীর ছেলে পাবেলসহ ৫জন লেখাপড়া ছেড়ে দিয়েছেন। অবশিষ্ট দু’ শিক্ষার্থী উপজেলা সদরে নানা বাড়িতে থেকে ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে লেখাপড়া করছেন বলে মোহাম্মদ আলী জানান। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সেলিম মিয়া বলেন, এ উপজেলায় বিদ্যালয়গুলোর দেয়া তথ্য মতে এবার ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে ৪ হাজার ১শ’’ ৩জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। আর ভুতরে বলতে কিছুই নেই। মাদ্রাসার শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক  অধ্যক্ষ মাও. নুরে আলম ছিদ্দিকির কাছে এ বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, দু’থেকে আড়াইশ” শিক্ষাথী বেশি হতে পারে কিন্তু এত বেশি হতে পারে না।

আরও সংবাদ

ঈদ-উল-ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন – মাকছুদুর রহমান 

শিক্ষা তথ্যঃ পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষ্যে লক্ষ্মীপুর জেলাবাসীকে শুভেচ্ছা  জানিয়েছে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার  ১৩নং …