সোমবার , মার্চ ৩০ ২০২০
সংবাদ শিরোনাম
Home » জাতীয় » হাজারো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের মাতৃভাষা-মোঃ আলতাজ উদ্দিন

হাজারো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের মাতৃভাষা-মোঃ আলতাজ উদ্দিন

মোঃ মাসুম রেজা (পলাশ) রাজশাহী জেলা ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ ১নং ভারশোঁ ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মোঃ আলতাজ উদ্দিন প্রাং তার অফিসে শিক্ষা তথ্যকে দেওয়া এক সাক্ষাৎ কারে বলেন, হাজারো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের এই মাতৃভাষা।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গীয় সমাজে বাংলা ভাষার অবস্থান নিয়ে বাঙালির আত্ম-অম্বেষায় যে ভাষাচেতনার উন্মেষ ঘটে, তারই সূত্র ধরে বিভাগোত্তর পূর্ববঙ্গের রাজধানী ঢাকায় ১৯৪৭ সালের নভেম্বর-ডিসেম্বরে ভাষা-বিক্ষোভ শুরু হয়। ১৯৪৮ সালের মার্চে এ নিয়ে সীমিত পর্যায়ে আন্দোলন হয় এবং ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারিতার চরম প্রকাশ ঘটে।

ঐদিন সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্ররা ১৪৪ ধারা অমান্য করে রাজপথে বেরিয়ে এলে পুলিশ তাদের ওপর গুলি চালায়। এতে আবুল বরকত, আব্দুল জব্বার, আবদুস সালাম সহ কয়েকজন ছাত্রযুবা হতাহত হন। এ ঘটনার প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ ঢাকাবাসী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হোস্টেলে সমবেত হয়। নানা নির্যাতন সত্ত্বেও ছাত্রদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ জানাতে পরের দিন ২২ ফেব্রুয়ারি পুনরায় রাজপথে নেমে আসে। তারা মেডিকেল কলেজ হোস্টেল প্রাঙ্গণে শহীদদের জন্য অনুষ্ঠিত গায়েবি জানাজায় অংশগ্রহণ করে। ভাষাশহীদদের স্মৃতিকে অমর করে রাখার জন্য ২৩ ফেব্রুয়ারি এক রাতের মধ্যে মেডিকেল কলেজ হোস্টেল প্রাঙ্গণে গড়ে ওঠে একটি স্মৃতিস্তম্ভ, যা সরকার ২৬ ফেব্রুয়ারি গুঁড়িয়ে দেয়। একুশে ফেব্রুয়ারির এই ঘটনার মধ্য দিয়ে ভাষা আন্দোলন আরও বেগবান হয়। ১৯৫৪ সালে প্রাদেশিক পরিষদ নির্বাচনে যুক্তফ্রন্ট জয়লাভ করলে ৭ মে অনুষ্ঠিত গণপরিষদের অধিবেশনে বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। বাংলাকে পাকিস্তানের দ্বিতীয় রাষ্ট্রভাষা হিসাবে স্বীকৃতি দিয়ে সংবিধানে পরিবর্তন আনা হয় ১৯৫৬ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি।

১৯৮৭ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদে ‘বাংলা ভাষা প্রচলন বিল’ পাশ হয়। যা কার্যকর হয় ৮ মার্চ ১৯৮৭ সাল থেকে।

আরও সংবাদ

নড়াইলে মাস্ক না পরার অপরাধে পেটানোর ঘটনায় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও সহকারি ইনচার্জকে ক্লোজ

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ নড়াইলে মাস্ক না পরার অপরাধে এক যুবককে পেটানোর ঘটনায় দু’পুলিশ …