শনিবার , সেপ্টেম্বর ১৯ ২০২০
সংবাদ শিরোনাম
Home » সারাদেশ » ঢাকা » ঘুরে এলাম সোনারগাঁও

ঘুরে এলাম সোনারগাঁও

সোনার গাঁও বাংলার মুসলিম শাসকদের
অধীনে পশ্চিম বঙ্গের একটি প্রশাসনিক কেন্দ্র
ছিল। এটি বর্তমানে বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলার একটি উপজেলা।

এটি ঢাকা থেকে ২৭ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত। এখানে আছে মনোমুগ্ধকর বাংলার প্রাচীন রাজধানী গ্রাম বাংলার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বেষ্টিত সোনারগাঁও।

এখানকার লোক ও কারু শিল্প ফাউন্ডেশনের বিশাল চত্বরে রয়েছে বেশ কয়েকটি পিকনিক স্পট। আছে খুব সুন্দর জাদুঘর। সোনাগাঁয়ের ইতিহাস বলে দেয় এর পূর্বে শীতলক্ষ্যা নদী,

দক্ষিণে ধলেশ্বরী নদী ও উত্তরে ব্রহ্মপুত্র
নদী দ্বারা বেষ্টিত একটি বিস্তৃত জনপদ।
প্রাচীন বাংলার রাজধানী এবং ইতিহাসের
এক গৌরবোজ্জল জনপদ ছিল এটি।

১৩৩৮
সালে বাংলার স্বাধীন সুলতান ফখরুদ্দিন
মুবারক শাহ সোনারগাঁয়ে বাংলার রাজধানী স্থাপন করেন।

সোনার গাঁয়ের নাম নিয়ে যুগ যুগ ধরে লোক
মুখে গল্প শুনে আসছি। কেউ বলে এই প্রাচীন
নগরীর পাশে ছিল একটি সোনার খনি।

বুড়িগঙ্গা থেকে ভেসে আসতো সোনার গুড়ো।
সেই জন্য এই জায়গার নাম রাখা হয় ‘সুবর্ণ
গ্রাম। আবার অনেকের ধারনা এই শহরটি নাম
হয়েছে ঈশা খাঁর স্ত্রী সোনা বিবির নামে।

আর ওই নগরটি ছিল ঈসা খাঁর রাজধানী। আবার
অনেকেই বলে পুরো এলাকার মাটি ছিল
লালবর্ণ। সেই থেকে এই জনপদের নাম রাখা হয়
সোনার গাঁও।

বাংলার প্রাচীন রাজধানী সোনার গায়ের
ইতিহাস ও ঐতিহ্য ইতিহাস নদী-নালা, খাল-বিল
পরিবেষ্টিত এবং অসংখ্য গাছপালা সবুজের
সমারোহ ভ্রমণ পিপাসুদের মন সহজেই ‍আকৃষ্ট করবে। তাইতো এখানে ছুটে আসে ভ্রমণ পিপাসু মানুষ, স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রী ও বিদেশী পর্যটকরা।

ঈসার খাঁর বাড়ীটি অসাধারণ স্থাপত্যশীল আর মধ্যযুগে পানাম নগরী আছে দেখার মতো।

আরও সংবাদ

সাংসদ পত্নী লিপির সুস্থতা কামনায় সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা কমলের উদ্যেগে দোয়া অনুষ্ঠিত

বন্দর প্রতিনিধিঃ প্রভাবশালী  সাংসদ শামীম ওসমানেরর সহধর্মনী ও নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার  চেয়ারম্যান সালমা ওসমান …