+8801711204697

আটোয়ারীতে টিআর,কাবিখা প্রকল্পে টাকা হরিলুট

শিক্ষা তথ্য October 03, 2022

সাইদুজ্জামান রেজা, পঞ্চগড়ঃ-পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার ২০২১-২২ অর্থ বছরের গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার কর্মসূচির কাবিখা,কাবিটা ও টিআর প্রকল্পের আওতায় উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কাঁচা রাস্তা সংস্কার প্রকল্পের লক্ষ লক্ষ টাকা উন্নয়নের নামে অনিয়মের হরিলুটের অভিযোগ উঠেছে।

 

প্রকল্পে জড়িত থাকা সংশ্লিষ্ট প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কর্মচারীসহ জনপ্রতিনিধি ও প্রকল্প সভাপতিদের বিরুদ্ধে।কর্তৃপক্ষ বলছে কাজ দেখে অর্থ ছাড় দেয়া হয়েছে।

 

সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের চিত্র জনগনকে জানানোর জন্য প্রকল্পের সাইনবোর্ড দৃশ্যমান জায়গায় দেয়ার বিধান থাকলেও তা মানা হয়নি।প্রকল্প লুট করতে তা গোপন করেছেন সংশ্লিষ্টরা। উপজেলা প্রশাসন ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কাছে বার বার তথ্য চাওয়া হলেও বিভিন্ন অযুহাতে দিনের পর দিন পার করছেন।এমনকি তথ্য অধিকার আইনের আবেদন ফরমে আবেদন করেও তা পাওয়া যায়নি।

 

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, ভুয়া প্রকল্প সাজিয়ে রাস্তা নির্মাণে মাটি ভরাট না করে শুধু ড্রেসিং করেকোথাও আবার সেটাও নাই প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করেছে প্রকল্পের সভাপতি ও সংশ্লিষ্টরা। অধিকাংশ প্রকল্পের তেমন কাজ না করেই অর্থ উত্তোলন করে তারা ভাগাভাগি করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

সরেজমিনে উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের পানবাড়া মঈন উদ্দিন মেম্বারের বাড়ি হতে আরাজি কৃষ্ণনগর টাঙ্গন নদী পর্যন্ত রাস্তা সংস্কারের জন্য ৩ লক্ষ ৩৫ হাজার ৫১৯ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।পানবাড়া ঈদগা মাঠ হতে পূর্বে আশ্রয়ন প্রকল্প পর্যন্ত রাস্তা সংস্কারের জন্য বরাদ্দ ৭.১৬৪ মেট্রিকটন চাল। সর্দারপাড়া বাজারের পূর্বে আহিরুলের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা সংস্কারে ১ লাখ ৩০ হাজার ৮১১ টাকা, খ্রীষ্টানপাড়া পশ্চিমে আহিরুলের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা সংস্কার বরাদ্দ ১.৭৪৭ মেট্রিকটন চাল। ঝলঝলি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পূর্বে বড় রাস্তা পর্যন্ত সংস্কার বরাদ্দ ২ লাখ টাকা।আরাজী কৃষ্ণনগর টাঙ্গন নদীর ব্রিজের দুই ধারে রাস্তার সংস্কার বরাদ্দ ৭০ হাজার টাকা।এসব প্রকল্পের কাজ কয়েকজন শ্রমিক দিয়ে রাস্তার ঘাস ড্রেসিং করে দিয়েই শেষ করেন সংস্কারের কাজ।আবার কোন প্রকল্পের কাজ দৃশ্যমান নেই।শুধু তাই নয় প্রায় সকল প্রকল্পে অনিয়ম আর দুর্নীতির অনুসরন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।প্রকল্প এলাকার আব্দুস সামাদ, রহিম, তারেকসহ একাধিক ব্যক্তি জানান,শুধু ঘাস ড্রেসিং করে ছোট-বড় দু,চারটি গর্তে মাটি দিয়ে শেষ করেছে রাস্তা সংস্কারের কাজ। 

 

সর্দারপাড়া ও খ্রিস্টানপাড়া দুইটি স্ক্রীমের কাগজ কলমে বরাদ্দ একটির ১ লাখ ৩০ হাজার ৮১১ টাকা।আরেকটির বরাদ্দ ১.৭৪৭ মেট্রিকটন চাল। প্রকল্প সভাপতি ইউপি সদস্য মোশারফ হোসেন জানান, দুটি রাস্তায় ২ মেট্রিকটন চাল পেয়েছি। যথেষ্ট কাজ করেছি।বরাদ্দ যে আরো বেশির তার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন,সেটা তাহলে এনামুল জানে তবে এনামুল বলছে জীবনেও শুনিনি ১-২ টন চাল বরাদ্দ, তবে কাজ ভাল হয়েছে। 

 

আরেকটি স্ক্রীমের প্রকল্প সভাপতি ইউপি সদস্য তেজাক্কারুল বলেন,সংস্কারের কাজ কি হয়েছে সেটা আপনারা ভাল জানেন।আপনারা উপজেলা চেয়ারম্যানের আত্মীয় এনামুলের সাথে কথা বলেন।কোন এনামুল জানতে চাইলে সুখ্যাতি এলাকার মাটিকাটার সর্দার বলেই সবাই চেনে। যদিও এনামুল বলছে আমি চুক্তি নিয়ে কাজ করেছি। 

 

আটোয়ারী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শরীফ মোঃরুবেল অফিসে না পেয়ে, মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

 

আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মুসফিকুল আলম হালিম জানান, এবার প্রকল্পের শুরুতেই ওয়েবসাইটে সব তথ্য দিব, যেন সবাই দেখতে পায়। তবে যদি কোন প্রকল্পে কাজের সমস্যা হয় তাহলে আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করবো। 

Share This