Dark Mode
  • Wednesday, 01 December 2021
মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়

মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়

স্টাফ রিপোর্টারঃ- বর্তমান সরকার শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য নিচ্ছেন নানামুখী পদক্ষেপ এবং সফলতার দারপ্রান্তে যখন এসে পৌছায় ঠিক তখনই বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ এর ভয়াল থাবায় সবকিছু এলোমেলো করে দেয়। যার জন্য বন্ধ করে দিতে হয় সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ এর কথা চিন্তা করে খুলে দেয় সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সিদ্ধান্ত নেয় সিলেবাস কমিয়ে সংক্ষিপ্ত পরীক্ষার।
 
 
সেই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে পটুয়াখালীর গলাচিপার বাঁশবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে চলছে করোনা ভাইরাস এর কারনে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে বার্ষিক পরীক্ষার জন্য অতিরিক্ত টাকা আদায়ের মহোৎসব। এতে অভিবাবকরা পরেছেন মহাবিপাকে। সহকারী শিক্ষকদের দেয়া তথ্যমতে উক্ত বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ৮৫ জন, ৭ম শ্রেণীতে ১ শত ১৫ জন, ৮ম শ্রেণীতে ৯০ জন, ৯ম শ্রেণীতে ৮০ জন ও ৭৪ জন শিক্ষার্থী লেখাপড়া শিখছেন। ৬ষ্ঠ থেকে শুরু করে দশম শ্রেণী পর্যন্ত ১২শত নব্বই থেকে ১ হাজার ৮ শত ৯০ টাকা আদায় করার ফলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।
 
 
অসহায়দের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে অর্ধেক টাকা, স্বচ্ছলদের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে পুরো টাকা। ফলে টাকার অভাবে অনেক শিক্ষার্থীর বার্ষিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ৬ষ্ঠ শ্রেণীর মেহনাজ ও মারুফ হোসেন এবং সপ্তম শ্রেণীর সায়েম, লিয়ামনি, জিহাদ উদ্দিন ও রাসেদুল জানান, তাদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ ১৩ শত টাকা এবং সর্ব নিম্ন নিচ্ছেন ৮ শত ২০ টাকা নেওয়া হয়েছে। 
 
এ ব্যাপারে বাঁশবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোসা. তাসলিমা বেগম এর কাছে জানার জন্য একাধিকবার তার বিদ্যালয়ে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। মুঠোফোনে তিনি বলেন আমি অনেক দুরে আছি। উক্ত বিষয়ে গলাচিপা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা জানান, শুধুমাত্র পরীক্ষার ফি ছাড়া অতিরিক্ত টাকা আদায় করার কোনো নিয়ম নেই। 
 
যদি এ ধরণের ঘটনা ঘটে থাকে তদন্ত সাপেক্ষে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে তাদের বিরুদ্বে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করা কথা বলেন।
 
 
এবিষয়ে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক অতিরিক্ত  (শিক্ষা) ইশরাত জাহান মুঠোফোনে জানান, বর্তমান সরকারের নির্দেশনায় শিক্ষা ব্যাবস্থায় শিক্ষার্থীদের জীবনমান উন্নয়নে নানা মুখী কর্মসূচী অব্যাহত। এ ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম এবং অতিরিক্ত টাকা আদায়ের বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখে আইনানুগ ব্যবস্তা গ্রহণ করা হবে। 
শেয়ার করুন :

মন্তব্য করুন

You May Also Like