Dark Mode
  • Monday, 27 September 2021
৫দিন আগে চাকুরীচ্যুত করা ব্যাক্তির অপরাধের দায় আমার উপর বর্তায় কোন কারণে-খান মাসুদ

৫দিন আগে চাকুরীচ্যুত করা ব্যাক্তির অপরাধের দায় আমার উপর বর্তায় কোন কারণে-খান মাসুদ

নারায়ণগঞ্জ শহরে ফেন্সিডিলসহ রফিকুলের গ্রেফতারকে ঘিরে অনেকেই ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবলীগ নেতা ও বন্দর ১নং খেয়াঘাটস্থ কল্পনা খান মার্কেটের জেনারেটর'র মালিক খান মাসুদ। প্রেরিত এক বার্তায় খান মাসুদ আসন্ন নাসিক নির্বাচনে আমি ২২ নং ওয়ার্ডের একজন কাউন্সিলর প্রার্থী। নির্বাচন করার ইচ্ছা কখনো ছিলনা। আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি জনগনের সেবা করতে গেলে জনপ্রতিনিধি হওয়া লাগেনা।

যার প্রতিফলন হিসেবে ২০০১ সাল হতে খান মাসুদ দল, সংগঠন ও জনকল্যাণে কাজ করে যাচ্ছি। জনগনের সার্বিক অবস্থা উপলদ্ধিপূর্বক ও সর্ব মহলের চাপের মুখে যেই ইদানীং নির্বাচনমুখী হওয়ার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি ঠিক সেই মুহুর্তে এসে আমার জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়ে একাধিক মহল নানা কূটচালে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

নানাভাবে তারা আমাকে প্রতিহত করার হীনচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যার বর্হিঃপ্রকাশ হিসেবে বলা যায় রফিকুলের বিষয়টিকেই। যেখানে আমার ব্যাক্তিগত ফেসবুক আইডি থেকে রফিকুলের ছবি দিয়ে তাকে জেনারেটর প্রতিষ্ঠান থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে সেখানে ওই ঘোষণার ৫দিন পর অতি উৎসাহিত কিছু সংবাদকর্মী রফিকুলকে আমার কর্মচারী হিসেবে উল্লেখ করে সংবাদ পরিবেশণ করেন কোন সুত্রে? রফিকুলের বিষয়টিকে পূঁজি করে হয়তোবা কেউ কেউ ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা চালাচ্ছেন। রফিক নামের ছেলেটা আমার জেনারেটর সার্ভিসে একজন হেলপার হিসেবে কাজ করতো। যতদূর জানি ও একটু মানষিক ভারসাম্যহীনের মতো। ওর পরিবার খুব নিন্ম আয়ের পরিবারের। ওর পরিবারের প্রতি দয়া দেখিয়ে রফিককে আমার জেনারেটর সার্ভিসে চাকরিতে নেই।

রফিকের অপকর্মের ব্যাপারে কিছুদিন পূর্বে আমার কাছে কিছু রিপোর্ট আসে। সে অপরাধের প্রেক্ষিতেই রফিককে আমার জেনারেটর অফিস থেকে বের করে দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেই। আমার কাছে কোন অপরাধীর ছাড় নেই সে আমার যতই আপন হোক না কেনো। সুতরাং যেখানে একজন কর্মচারীকে ৫দিন আগে প্রতিষ্ঠান থেকে চাকুরীচ্যুত করা হয়েছে সেখানে ৫দিন পর সেই ব্যাক্তির অপরাধের দায় আমার উপর বর্তায় কোন কারণে? এটা কোন ধরনের মনমানসিকতা বা সাংবাদিকতা। সঠিক বিষয়টি অকপটে প্রকাশ করা সাংবাদিকদের নৈতিক দায়িত্ব। অহেতুক কাউকে টানাটানি বা জড়িয়ে সংবাদ প্রকাশ করাটা অপ-সাংবাদিকতার শামিল নয় কি?

সাংবাদিকরা হল জাতির দর্পন বা আয়না। সেই আয়নায় সঠিক,সত্য বিষয়গুলো সাহসের সাথে তুলে ধরবে। যেখানে অন্যায়, অবিচার সেখানে সাংবাদিকদের কলম চলবে। সাংবাদিকের কলমের কালি শহীদের রক্তের চেয়ে দামী। সেই কালির অপব্যবহার করবেন না আপনাদের প্রতি আমার আবারো হাতজোর অনুরোধ।

শেয়ার করুন :

মন্তব্য করুন

You May Also Like